মুভি সেটে যত দুর্ঘটনা(১৯২০-২০১২)(ট্রিভিয়া পোস্ট) – আহমাদ জাদীদ এর বাংলা ব্লগ । bangla blog | সামহোয়্যার ইন ব্লগ – বাঁধ ভাঙ্গার আওয়াজ

আর্মার অব গড(১৯৮৬)

জ্যাকি চ্যান একটি দেয়াল থেকে গাছে লাফিয়ে পড়বেন, এমন একটি দৃশ্যে কাজ করার সময় গাছের ডাল থেকে হাত ফসকে যায় জ্যাকি চ্যানের, ফলশ্রুতিতে ১৫ ফিট নিচে মাটিতে পড়ে যান চ্যান । একটি পাথরের সাথে তার মাথার বাড়ি লাগে, তার খুলির কিছু অংশে ফাটল ধরে এবং একটি টুকরা মস্তিস্ক পর্যন্তও চলে যায় । তিনি ডান কানে একারণে শুনতে পান না এখন ।

দি সোর্ড অফ টিপু সুলতান(১৯৮৯)

সেটে হওয়া মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে এই ঘটনা অত্যন্ত ব্যাপক । এই ইন্ডিয়ান টিভি মুভির সেটে আগুন লেগে গেলে ৬২জন এক্সট্রা ও ক্রু সদস্যের জীবনসান হয় । পরিচালক ও অভিনেতা সঞ্জয় খান ১৩ মাস হাসপাতালে অবস্থান করেন, সেই সময়ে তার শরীরে ৭২ টি সার্জারি হয়েছিল বলে জানা যায় ।

দি ক্রো(১৯৯৩)
মার্শাল আর্ট অভিনেতা ব্রুস লির ছেলে ব্র্যান্ডন লি বাবার মতই অল্প বয়সে মারা যান । ব্লাঙ্ক বুলেট পিস্তলে থাকার কথা থাকলেও আসল বুলেট ফায়ার হলে ব্র্যান্ডন লি মৃত্যুবরণ করে ।

রাম্বল ইন দি ব্রঙ্কস(১৯৯৫)
স্টান্ট দিতে গিয়ে জ্যাকি চ্যান ডান পা ভেঙ্গে ফেলেন । বিশেষ ব্যবস্থায় বাকি শ্যুটিং করা হয় ।

মিঃ নাইস গাই(১৯৯৭)
জ্যাকি চান ফাইট সিনের সময় ঘাড়ে আঘাত পান ।

পার্ল হারবার(২০০১)
মুভির সেটে জাপানীজ ফাইটার প্লেনের আদলে সাজানো একটি স্টান্ট প্লেন ক্র্যাশ করে । পাইলট গুরুতর আহত হলেও বেঁচে ফিরতে সমর্থ হয় ।

via মুভি সেটে যত দুর্ঘটনা(১৯২০-২০১২)(ট্রিভিয়া পোস্ট) – আহমাদ জাদীদ এর বাংলা ব্লগ । bangla blog | সামহোয়্যার ইন ব্লগ – বাঁধ ভাঙ্গার আওয়াজ.

Advertisements